সিরিজ

আগুনে পোড়ে না, আগুন ছাড়া চলেও না : বিস্ময়-গাছ সেকুইয়া

টিম সিলি পয়েন্ট Jan 31, 2023 at 9:41 am সিরিজ

'আগুনখেকো' জীব আমরা দেশি-বিদেশি পুরাণে বিস্তর পেয়েছি। কিন্তু বাস্তবে সত্যিই এমন জীব আছে নাকি যার বেঁচে থাকার জন্য আগুনই মুখ্য সম্বল?

আছে। উত্তর আমেরিকার ক্যালিফোর্নিয়া প্রদেশেই আছে এমন আগুনপ্রেমী গাছ। সেকুইয়া। বিজ্ঞানসম্মত নাম Sequoiadendron giganteum। রেডউড প্রজাতির এই গাছেরা আক্ষরিক অর্থেই এরা দৈত্যাকার হয়ে থাকে। লম্বায় প্রায় ৩২৫ ফিট পর্যন্ত হতে পারে এই গাছগুলি। বাঁচতে পারে সর্বোচ্চ ৩০০০ বছর পর্যন্ত । ক্যালিফোর্নিয়ার  সিয়েরা নেভাডা পর্বতমালার দক্ষিণে এই গাছের গোটা একটা জঙ্গল আছে। জঙ্গলের নামকরণও হয়েছে এই গাছের নামেই। সেকুইয়া ন্যাশনাল ফরেস্ট। 
এই জঙ্গল পৃথিবীর সবচেয়ে বেশি দাবানলপ্রবণ জঙ্গলগুলির তালিকায় একেবারে শুরুর দিকেই থাকবে। এই অঞ্চলে দাবানল প্রায় নিয়মিত ঘটনা, অথচ তা সত্ত্বেও সেকুওইয়া গাছ বেঁচে থাকে যুগ যুগ ধরে। সব গাছই যে বেঁচে যায় তা নয়। তবে পূর্ণবয়স্ক হবার সুযোগ পেলে সাধারণত গাছগুলি দাবানলে ক্ষতিগ্রস্ত হয় না। অন্যান্য গাছের তুলনায় এঁদের তাপসহন ক্ষমতা অনেক বেশি। 
শুধু তাই নয়, এদের বৃদ্ধি বা বংশবিস্তার অনেকটাই নির্ভর করে আগুনের ওপর। সেকুইয়া গাছের ফল শঙ্কু আকৃতির। যার মধ্যে থাকে এই ক্ষুদ্র বীজগুলি শক্ত এক ধরণের আঠার সাহায্যে শঙ্কুর মধ্যে আটকে থাকে। সাধারণ আবহাওয়ায় কোনোভাবেই এই বীজ শঙ্কুর ভেতর থেকে বেরিয়ে এসে মাটিতে পড়তে পারে না, তাই নতুন গাছের অঙ্কুরোদ্গমও হতে পারে না। দাবানলের অত্যন্ত উচ্চ তাপমাত্রা এই আঠা গলিয়ে ফেলতে সক্ষম হয়। তার ফলে শঙ্কুর মুখ খুলে যায়, মাটিতে ছড়িয়ে পড়তে পারে বীজ। তাছাড়া দাবানলের ফলে যে ছাইয়ের আস্তরণ মাটিকে ঢেকে ফেলে, সেটা এই গাছের অঙ্কুরোদ্গমের জন্য একেবারে আদর্শ। 
সেকুইয়া ন্যাশনাল ফরেস্টে সবচেয়ে বয়স্ক গাছটির নাম 'জেনারেল শেরম্যান'। বয়স ২২০০ বছর। 
........................

ঋণ : www.scientificamerican.com
#Giant sequoia #Fire Resistant

Leave a comment

All fields are required. Comment will appear after it is approved.

trending posts

newsletter

Connect With Us

today's visitors

47

Unique Visitors

181449