ফিচার

যিশুখ্রিস্টের জন্ম কি সত্যিই ডিসেম্বরের পঁচিশে?

মন্দিরা চৌধুরী 11 days ago ফিচার ২৫

গত মাসেই আমরা পালন করলাম যিশুখ্রিস্টের ২০২২ তম জন্মদিন। ডিসেম্বর মাসের পঁচিশ তারিখ বিশ্বজুড়ে পালিত হয় যিশুখ্রিস্টের জন্মদিন হিসেবে। কিন্তু এই দিনটি আদৌ যিশুখ্রিস্টের জন্মদিন কিনা, তা নিয়ে কিন্তু বিস্তর মতপার্থক্য আছে। তারিখের কথা ছেড়েই দিন, প্রথম খ্রিস্টাব্দকেও তো কেউ কেউ যিশুখ্রিস্টের জন্মসাল বলে অস্বীকার করেছেন। মানে তাঁদের দাবি, খ্রিস্টাব্দের শুরুটাই ভুল সময় থেকে গণ্য হয়ে আসছে।

একদল গবেষক অনুমান করেছেন, ২৫শে ডিসেম্বর দিনটিকে যিশুর জন্মদিন হিসেবে নির্বাচন করেছে রোমান ক্যাথলিক চার্চ। এর কারণ সম্ভবত এই দিনটি শীতকালীন অয়নকাল এবং প্রাচীন রোমান উৎসব স্যাটার্নালিয়ার মধ্যবর্তী সময়ে পড়ে। পণ্ডিত ইগনাসিও এল গোটজ তাঁর 'Jesus the Jew: Reality, Politics, and Myth-A Personal Encounter' বইতে বলেছেন, চার্চের এই দনটি নির্বাচন করার আরও একটি কারণ হল এই সময়ে বিভিন্ন পৌত্তলিক ধর্মের শীতকালীন উৎসব চলে, তার মধ্যে এটিও একটি বড়ো উৎসব হিসেবে বিবেচিত হতে পারে। 

কিছু পণ্ডিত মনে করেন যিশু জন্মেছিলেন খ্রিস্টপূর্ব ষষ্ঠ শতক ও খ্রিস্টপূর্ব চতুর্থ শতকের মধ্যবর্তী সময়ে। বাইবেলের রাজা হেরোড দ্য গ্রেটের গল্প অনুসরণ করেই এমন অনুমান। গল্প অনুসারে, যিশুকে হত্যা করার অভিপ্রায়ে রাজা হেরোড বেথলেহেম এবং আশপাশের দুই বছরের কম বয়সী সমস্ত পুরুষ শিশুদের হত্যা করার নির্দেশ দেন, এই ঘটনা 'ম্যাসাকার অফ ইনোসেন্টস' নামে পরিচিত। গবেষকদের মতে এই ঘটনা ঘটেছিল খ্রিস্টপূর্ব চতুর্থ শতকে হেরোডের মৃত্যুর আগে। সেক্ষেত্রে যিশুর জন্মসময় হিসেবে খ্রিস্টপূর্ব ষষ্ঠ শতক ও খ্রিস্টপূর্ব চতুর্থ শতকের মধ্যবর্তী কোনো এক সময়কে স্বীকার করে নিতে হয়। তবে অনেক ইতিহাসবিদের মতে হেরোডের এই গণ-শিশুহত্যা একটি মিথ মাত্র, এর কোনো নির্ভরযোগ্য প্রমাণ নেই। তাছাড়া হেরোডের মৃত্যুর সময় নিশ্চিতভাবে বলা যায় না, তাই এই ঘটনাকে ভিত্তি করে যিশুখ্রিস্টের জন্মসাল নির্ধারণ করা যায় না।


যিশুর জন্মসম্পর্কিত আরেকটি বিতর্কিত উপাদান হল বেথলেহেমের নক্ষত্র। প্রচলিত কিংবদন্তি অনুযায়ী, তিনজন সন্ত দৈবাদেশ পেয়ে একটি নক্ষত্রকে অনুসরণ করে বেথলেহেম নগরে পৌঁছেছিলেন সদ্যোজাত যিশুকে দেখার জন্য। এই চলমান নক্ষত্রের তথ্যের ওপর ভিত্তি করে জ্যোতর্বিদরা যিশুর জন্মের প্রকৃত সময় বার করার চেষ্টা করেছেন। জ্যোতির্বিজ্ঞানী কলিন হামফ্রের মতে এই নক্ষত্র অত্যন্ত ধীরগতিসম্পন্ন একটি ধূমকেতু, যা চৈনিক পর্যবেক্ষকরা খ্রিস্টপূর্ব পঞ্চম শতকে পর্যবেক্ষণ করেছিলেন। কারও কারও মতে, শুক্র গ্রহ এবং বৃহস্পতি গ্রহ কাছাকাছি আসার ফলে আকাশে অতি উজ্জ্বল আলোর সৃষ্টি হয়েছিল, সেটাই কিংবদন্তির চলমান নক্ষত্র। এই ঘটনা ঘটেছিল খ্রিস্টপূর্ব দ্বিতীয় শতাব্দীর জুন মাসে। প্রায় অনুরূপ একটি ঘটনা ঘটেছিল খ্রিস্টপূর্ব সপ্তম শতাব্দীর অক্টোবর মাসে, তবে এক্ষেত্রে শনি গ্রহ আর বৃহস্পতি গ্রহ কাছাকাছি এসেছিল। 

তবে এর মধ্যে কোনো অনুমানের সপক্ষেই নির্ভরযোগ্য কোনো তথ্যপ্রমাণ পাওয়া যায়নি। তাই যিশুখ্রিস্টের জন্মের সময় নিয়ে বিতর্কের অবসানও হয়নি।

.............................

 

#jesus christ #controversy #যিশু

Leave a comment

All fields are required. Comment will appear after it is approved.

trending posts

newsletter

Connect With Us

today's visitors

2

Unique Visitors

128276