ব্যক্তিত্ব

অধ্যাপনা থেকে স্বদেশী ও চা-শ্রমিকদের আন্দোলন : কৃষ্ণকুমার মিত্রের বহুমুখী কর্মোদ্যোগ

মন্দিরা চৌধুরী 16 days ago ব্যক্তিত্ব

দেশের স্বাধীনতা সংগ্রাম হোক বা সমাজ-সংস্কার, সামনের সারির অত্যুজ্জ্বল কিছু নামের আড়ালে চাপা পড়ে যায় অসংখ্য নাম। সেইজন্য যদিও তাদের কৃতিত্ব কিছু কম হয়ে যায় না, চর্চার অভাবে ক্রমশ জনমানসে ফিকে হয় সেইসব নাম। এমনই একজন কৃতী মানুষ ছিলেন কৃষ্ণকুমার মিত্র। উনিশ শতকের শেষাংশ এবং বিশ শতকের প্রথমাংশ জুড়ে সমাজ সংস্কার এবং স্বাধীনতা আন্দোলনে যুক্ত ছিলেন উদ্যমী এই মানুষটি।


কৃষ্ণকুমার মিত্রের জন্ম ১৮৫২ সালে, অবিভক্ত বাংলার ময়মনসিংহ জেলার টাঙ্গাইল মহকুমার বাঘিল গ্রামে। বাবা গুরুচরণ মিত্র নীলবিদ্রোহের সময়ে নিজের গ্রামে অত্যাচারী নীলকর সাহেবদের বিরূদ্ধে সশস্ত্র প্রতিরোধ গড়ে তুলেছিলেন। কৃষ্ণকুমার ১৮৭০ সালে ময়মনসিংহ জেলা স্কুল থেকে প্রবেশিকা পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন এবং তারপর কলকাতার জেনারেল অ্যাসেম্বলীজ কলেজ (বর্তমান স্কটিশ চার্চ কলেজ) থেকে বি.এ. পাশ করেন। কৈশোর থেকেই তিনি ব্রাহ্মসমাজের কার্যকলাপে আগ্রহী হন, তিনি নিজে ব্রাহ্মধর্মে দীক্ষা নেন ১৮৭০ সালে। এরপর কলকাতায় এসে সক্রিয়ভাবে ব্রাহ্ম আন্দোলনে যোগ দেন তিনি। ১৮৭৮ সালে কৃষ্ণকুমার যোগ দেন কেশব সেনের বিরোধী সাধারণ ব্রাহ্ম সমাজে।  আমৃত্যু তিমি এই সমাজের সক্রিয় সদস্য ছিলেন। কৃষ্ণকুমারের বিবাহও হয় ব্রাহ্ম সমাজের একজন পুরোধা রাজনারায়ণ বসুর কন্যা লীলাবতীর সঙ্গে।

পেশাগত জীবনে কৃষ্ণকুমার ছিলেন শিক্ষক। কলকাতায় সিটি স্কুল প্রতিষ্ঠা হওয়ার সময় থেকেই তিনি এখানে শিক্ষকতা করতেন। পরে এই সিটি স্কুল যখন কলেজে উন্নীত হয় তখন তিনি সিটি কলেজে ইতিহাসের অধ্যাপক নিযুক্ত হন, পরে তত্ত্বাবধায়ক পদেও তিনি ছিলেন। কলেজে চাকরি করাকালীনই তিনি স্বদেশী আন্দোলনে জড়িয়ে পড়েন। তখন ইংরেজ সরকার হুমকি দেয় যে কলেজের কেউ স্বদেশী কার্যকলাপের সঙ্গে যুক্ত থাকলে কলেজের অনুমোদন বাতিল হয়ে যাবে, তখন একপ্রকার বাধ্যত কৃষ্ণকুমার কলেজের চাকরি ছেড়ে দেন।

কৃষ্ণকুমার ১৮৭৬ সালে ভারতসভার সাথে যুক্ত হন, সেই বছরেই দ্বারকানাথ গঙ্গোপাধ্যায়ের সঙ্গে ভারতসভার যুগ্ম-সম্পাদক হন। ছাত্রাবস্থায় তিনি আনন্দমোহন বসুসহ আরো বেশ কয়েকজন রাজনৈতিক নেতার সাথে বিভিন্ন আন্দোলনে অংশ নেন। তিনি ও সুরেন্দ্রনাথ বন্দ্যোপাধ্যায় রাজনৈতিক প্রচার ও সিভিল সার্ভিস রুলের বিরুদ্ধে জনমত তৈরির জন্য ভারতের বিভিন্ন স্থানে ভ্রমণ করেছেন। ১৮৮৫ সালে জাতীয় কংগ্রেসের সাথে যুক্ত হন। কৃষ্ণকুমার ছিলেন বঙ্গভঙ্গ ও স্বদেশী আন্দোলনের একেবারে প্রথম সারির নেতা। ১৯০৬ সালে বরিশালে অনুষ্ঠিত প্রাদেশিক কংগ্রেসের একটি অধিবেশনে তিনি সাধারণ মানুষের ওপর পুলিশের অত্যাচার ও নির্যাতনের প্রতিবাদ করেন। ১৯০৮ সালে মানিকতলা বোমা হামলা মামলায় তিনি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন। ১৯০৮ সালের ডিসেম্বর মাসে ব্রিটিশ সরকার তাকে স্বদেশী আন্দোলনে জড়িত থাকার অভিযোগে গ্রেফতার করে এবং আগ্রা জেলে কারারুদ্ধ করে। ১৮৮৫ সালে কৃষ্ণকুমার জাতীয় কংগ্রেসে যোগ দেন। জাতীয় কংগ্রেসের সমস্তবকর্মসূচীতে জড়িত থাকলেও গান্ধিজীর অসহযোগ আন্দোলন তিনি সমর্থন করেননি, এই আন্দোলনের বিরোধিতাও করেছেন।


১৮৮৩ সালে দ্বারকানাথ গঙ্গোপাধ্যায়, হেরম্বচন্দ্র মৈত্র, রাজকুমার বিদ্যারত্ন ও কৃষ্ণকুমার মিলে 'সঞ্জীবনী' নামক একটি পত্রিকা প্রকাশ করেন। এই পত্রিকার প্রথম পাতায় শিরোনামের সঙ্গে লেখা থাকত 'সাম্য, মৈত্রী, স্বাধীনতা', যা ছিল ফরাসি বিপ্লবের মূলমন্ত্র। কৃষ্ণকুমার ভারতের শ্রমিক আন্দোলনেরও পুরোধাস্বরূপ ছিলেন। আসামের চা বাগানে কুলি, কর্মচারীদের ওপর মালিকপক্ষের নির্মন অত্যাচার ও শোষণের প্রতিবাদে সঞ্জীবনী পত্রিকায় তিনিব্ব দ্বারকানাথ গঙ্গোপাধ্যায় নিবন্ধ প্রকাশ করতেন। তিনি দ্বারকানাথ গঙ্গোপাধ্যায়ের সঙ্গে আসাম গিয়ে প্রত্যক্ষভাবে চা বাগানের কুলিদের আন্দোলন পর্যবেক্ষণ করেছেন এবং সেই সম্পর্কে 'জাস্টিস মার্ডারড ইন ইন্ডিয়া' নামক পুস্তিকা প্রকাশ করেছেন। ভারতে চা-আইন পাশ হওয়ার পিছনে তাঁর অবদান খুব কম ছিলো না। 

১৮৭৯ সালে 'ছাত্রসমাজ' প্রতিষ্ঠার সময়ে কৃষ্ণকুমার শিবনাথ শাস্ত্রী ও আনন্দমোহন বসুকে সাহায্য করেছিলেন। এছাড়া সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিপন্ন মহিলাদের উদ্ধার এবং সাহায্য করার জন্য তিনি 'নারীরক্ষা কমিটি' স্থাপন করেছিলেন। সারাজীবন এই বিপুল কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাবার পাশাপাশি কয়েকটি বই লিখেছিলেন কৃষ্ণকুমার। তাঁর 'মহম্মদ চরিত', 'বুদ্ধদেব চরিত', 'আত্মচরিত', 'রাজা সপ্তম এডওয়ার্ড', ও 'বৌদ্ধধর্মের সংক্ষিপ্ত বিবরণ' গ্রন্থগুলি যে যথেষ্ট শ্রমসাধ্য ও সময়ব্যাপী কাজ তা সহজেই বোঝা যায়। 

.............................. 

#Krishna Kumar Mitra #Indian freedom fighter

Leave a comment

All fields are required. Comment will appear after it is approved.

trending posts

newsletter

Connect With Us

today's visitors

46

Unique Visitors

121568